প্রয়াস সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর জাতীয় শোক দিবসের প্রস্তুতি সভা

আরো পড়ুন

নিজস্ব প্রতিবেদক : স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালনের লক্ষ্যে আজ শুক্রবার পাবনার কাশিনাথপুরের ঐতিহ্যবাহী সাহিত্য-সংস্কৃতির সংগঠন প্রয়াস সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর উদ্যোগে এক প্রস্তুতি সভা হয়েছে।

প্রয়াস সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর সভাপতি ইব্রাহিম কবির খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রস্তুতি সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- প্রয়াসের সহ সভাপতি মোশারফ হোসেন, সেক্রেটারী ফজলুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আরিফ খান, কোষাধ্যক্ষ মনিরুজ্জামান মনির, সাহিত্য-সাংস্কৃতিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ হোসেন চঞ্চল, আইন বিষয়ক সম্পাদক ছহিউল ইসলাম শিপন, প্রচার সম্পাদক মিজানুর রহমান কাজল, দপ্তর সম্পাদক আসাদুজ্জামান বিকাশ, কার্যকারী সদস্য আশরাফুজ্জামান মিয়া শিপন ও শেখ ফেরদৌস।

প্রয়াস সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর নির্মাণাধীন কার্যালয়ে বিকেল ৫টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় প্রয়াসের কার্যকারী সদস্যদের আমন্ত্রণে উপদেষ্টামণ্ডলী ও প্রতিষ্ঠাতা-পরিচালকদের অনেকেই উপস্থিত হয়ে শোক দিবস উদযাপনের গুরুত্ব বর্ণনা করে বক্তব্য দেন। উপদেষ্টাদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- ফুয়াদ সিদ্দিকী, হাফিজুর রহমান হাফিজ, ডা. আমিরুল ইসলাম সানু। প্রয়াসের প্রতিষ্ঠাতা-পরিচালনা বোর্ডের সম্মানিত সদস্য শেখ শামীম, মশিউর রহমান বাবু, জাহিদুল ইসলাম, ফেরদৌস আলম তপন, সালাহউদ্দিন আহমেদ, রিয়াজুল হক রবিন, আরিফুল ইসলাম, প্রভাষক মাসুদ রানা, আব্দুল মতিন, আলাউল হোসেন প্রমূখ।

অতিথির বক্তব্যে উপদেষ্টা হাফিজুর রহমান হাফিজ বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম না হলে বাংলাদেশ সৃষ্টি হতো না। তাঁর নেতৃত্বে দীর্ঘ নয় মাস মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত হয় আমাদের মহান স্বাধীনতা। বঙ্গবন্ধু মানে একটি ইতিহাস, একটি দেশ ও একটি পতাকা। বঙ্গবন্ধু ছাড়া বাংলাদেশ কল্পনা করা যায় না। যারা দেশের স্বাধীনতা চায়নি তারাই তাঁকে হত্যা করেছে। কিন্তু তাদের সে স্বপ্ন সফল হয়নি। কারণ, জীবিত বঙ্গবন্ধুর চেয়ে মৃত বঙ্গবন্ধু অনেক বেশি শক্তিশালী। আমেরিকা থেকে জর্জ ওয়াশিংটন, সোভেয়েত ইউনিয়ন থেকে ভ্লাদিমির লেলিন, ভারত থেকে মহাত্মা গান্ধী, ভিয়েতনাম থেকে হো চি মিন এর নাম যেমন মুছে ফেলা সম্ভব নয়, তাঁরা তাদের রাষ্ট্রের অবিচ্ছেদ্য অংশ। তেমনি বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ এক এবং অভিন্ন। তাই বঙ্গবন্ধু’কে কখনো বাংলাদেশ থেকে কেউ মুছে ফেলতে পারবে না। তিনি বেঁচে থাকলে বিশ্ব নেতা হতেন।

প্রয়াসের প্রতিষ্ঠাতা-পরিচালনা বোর্ডের অন্যতম সদস্য কথা সাহিত্যিক শেখ শামীম বলেন, বঙ্গবন্ধু কাল থেকে কালান্তরে ইতিহাসের চেতনায় আজীবন বেঁচে থাকবেন। আগামী প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর সঠিক ইতিহাস তুলে ধরতে হবে, তারা যেন অসত্য-বিকৃত ইতিহাস না শেখে। কারণ, স্বাধীনতা বিরোধীরা এখনও নানানভাবে দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্র ও ইতিহাস বিকৃতি করে যাচ্ছে। তাই সঠিক ইতিহাস আগামী প্রজন্মকে তাদের মানস গঠনে প্রেরণা যোগাবে। বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন বলেই বাংলাদেশ আজ বিশ্বের বুকে অনন্য মর্যাদার আসনে আসীন। জননেত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবেই। তাই সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করে সবাইকে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।

এছাড়াও এ সময় উপদেষ্টা শেখ কুদ্দুস, প্রয়াসের প্রতিষ্ঠাতা-পরিচালক ফারুক ইমাম ফিটু, ইব্রাহীম নয়ন, শামীম হোসেন, উজ্জ্বল হোসেন ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে প্রয়াসের কার্যক্রমের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেন।

প্রয়াস সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর সাংগঠনিক সম্পাদক আরিফ খান বলেন, ১৯৯৭ সালে কাশিনাথপুর শহীদ নূরুল হোসেন ডিগ্রি কলেজের শিক্ষক প্রয়াত হাবিবুর রহমান টিপু স্যারের নেতৃত্বে আমরা কাশিনাথপুরের একঝাঁক তরুণ প্রয়াস সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর কার্যক্রম শুরু করি। প্রয়াস সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর উপদেষ্টামণ্ডলীতে রয়েছেন- কাশিনাথপুর ইউনিয়ন পরিষদের সুযোগ্য চেয়ারম্যান মীর মঞ্জুর এলাহী, ডা. শামীম হুসাইন, অধ্যাপক মফিদুল ইসলাম শাহীন, সমাজ সেবক কামরুজ্জামান টিপু, সমাজ সেবক ফুয়াদ সিদ্দিকী, অধ্যক্ষ আবু বকর সিদ্দিক, শিল্পী বিপ্লব দত্ত, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সৈকত আরেফিন, সাংবাদিক হাফিজুর রহমান হাফিজ, ডা. আমিরুল ইসলাম সানু, কবি শফিকুল ইসলাম টুকু, অধ্যাপক কান্তি তুষার, শেখ কুদ্দুস, আবু সাইদ, মিজানুর রহমান, জমসেদা রহমান ডলি, হুমায়ুন কবির প্রমূখ।

আরিফ খান এ সময় আরও বলেন, অতি দুঃখের সাথে জানাচ্ছি যে, প্রয়াস সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর সর্বশেষ পূর্ণাঙ্গ কমিটি সকল সদস্যের উপস্থিতিতে গত ২৫ মার্চ তারিখে গঠন করা হয়। অথচ, সম্প্রতি কে বা কারা প্রয়াসের নাম ব্যবহার করে কমিটি গঠনের ঘোষণা দিয়েছেন। এটা তারা কেন কিভাবে করলো- তা আমাদের বোধগম্য নয়। কেননা, প্রয়াস সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর বর্তমান কমিটির মেয়াদ ২০২৩ সালের মার্চ পর্যন্ত রয়েছে। প্রয়াসের প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত হাবিবুর রহমান টিপু স্যারের তৈরিকৃত রেজুলেশন খাতায় নিয়মিত সভার মাধ্যমে প্রয়াসের সকল সদস্যের উপস্থিতিতে কমিটি গঠন করা আছে এবং সেই কমিটিই প্রতিনিয়ত কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। প্রয়াস সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর নাম কমিটির বাইরের কেউ ব্যবহার করতে পারেন না।

এহেন ঘটনার পুনরাবৃত্তি করে প্রয়াসের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ নিন্দা জ্ঞাপনের মাধ্যমে প্রয়াসের আজকের সভার কার্যক্রম সমাপ্ত ঘোষণা করেন।

বিজ্ঞাপনspot_img

বিজ্ঞাপন

spot_img

জনপ্রিয় খবর